মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

অফিস সম্পর্কিত

 

 সাধারণ তথ্য:

ব্রিটিশ ভারতে ১৯২৪ সালে জনগণকে স্বাস্থ্য ও স্যানিটেশন বিষয়ে সচেতন করার লক্ষ্যে পাবলিক হেলথ্ ডিভিশনের অধীনে  ডিষ্ট্রিক্ট পাবলিক রিলেশনস্ অফিস সৃষ্টি করা হয়।  তৎকালীন তথ্য বিভাগের আওতায় পাবলিসিটি ডিপার্টমেন্ট নামে কলকাতার রাইটার্স বিল্ডিংয়ে এ বিভাগের কার্যক্রম শুরু হয়।  ১৯৪৭ সালে তথ্য ও বেতার মন্ত্রণালয়ের অধীনে ফিল্ড পাবলিসিটি এবং নিউজ ও ফিল্ম শাখা নিয়ে পাবলিক রিলেশনস্ ডাইরেক্টরেট গঠিত হয়। ১৯৬৮ সালে এর কর্মপরিধি বাড়িয়ে প্রত্যেক জেলায় একজন ডিষ্ট্রিক্ট পাবলিক রিলেশনস অফিসার ও প্রত্যেক মহকুমায় একজন সাবডিভিশনাল পাবলিক রিলেশন্স্ অফিসারের পদ সৃষ্টি করা হয়। স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশের তৃণমূল পর্যায়ে জনগণকে সচেতন করার মাধ্যমে উন্নয়ন কার্যক্রমে উদ্বুদ্ধ ও সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ পরিষদ, বিএনআর এবং মহিলা শাখাকে একত্রিত করে ১৯৭২ সালে গণযোগাযোগ অধিদপ্তর গঠন করা হয়। ৬৪টি জেলা তথ্য অফিস ও ০৪টি উপজেলা তথ্য অফিসের মাধ্যমে দেশের সকল অঞ্চলে গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের কার্যক্রম বাস্তবায়িত হয়।   প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে জেলা ও উপজেলা তথ্য অফিসগুলো সরকারের গৃহীত নীতিমালা ও উন্নয়ন কর্মসূচির সাথে জনগণকে সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে বিভিন্ন সভা, সেমিনার, আলোচনা সভা, সংগীতানুষ্ঠান ও সিনেমা প্রদর্শন করে আসছে।  এক সময়ে গ্রামে-গঞ্জে বায়োস্কোপ একটি জনপ্রিয় গণমাধ্যম হিসেবে পরিচিত ছিল। এ অধিদপ্তরই সে সময় এ বায়েস্কোপ আয়োজন করতো এবং এর মাধ্যমে জনগণকে জন্মনিয়ন্ত্রণ ও স্যানিটেশন বিষয়ে তথ্য প্রদান করতো। বর্তমানে এ কাযক্রমের সাথে যোগ হয়েছে- ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্ত্র পরিদর্শন ও তদারকি, নাটক, কর্মশালা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, প্রেসমিটিং, শিশুমেলা, উঠান বৈঠক, পথপ্রচার, পুস্তিকা বিতরণসহ সরকারের নানামূখি কাজ।    সাহিত্য, সাংবাদিকতা ও সংগীত জগতের বরেণ্য ব্যক্তিবর্গ যেমন- তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া, কবি জসীম উদ্দীন, শিল্পী আব্বাস উদ্দীন, আব্দুল আলীম, সোহরাব হোসেন, আবদুল লতিফ, বেদার উদ্দীন প্রমূখ এ বিভাগে বিভিন্ন সময়ে কাজ করেছেন।

বর্তমানে কিশোরগঞ্জ জেলা তথ্য অফিস এপিএ চুক্তির আওতায় সরকারের সাফল্য, অর্জন, উন্নয়ন ভাবনা বিষয়ে জনগণকে  উদ্বুদ্ধকরণ এবং সম্পৃক্তকরণে লক্ষ্যে প্রেস ব্রীফিং, আলোচনা সভা,  মহিলা সমাবেশ, উঠান বৈঠক, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী ও সংগীতানুষ্ঠানসহ বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে।

এছাড়া মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক, যৌতুক, মাদক-জঙ্গীবাদ, স্বাস্থ্য, শিক্ষা এবং অন্য বিষয়ে নানা রকম অনুষ্ঠান, ভিডিও কনফারেন্স ও  চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হচ্ছে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

&nbsবিট্রিশ ভারতে ১৯২৪ সালে জনগণকে স্বাস্থ্য ও স্যানিটেশন বিষয়ে সচেতন করার লক্ষ্যে পাবলিক হেলথ্ ডিভিশনের অধীনে  ডিষ্ট্রিক্ট পাবলিক রিলেশনস্ অফিস সৃষ্টি করা হয়।  তৎকালীন তথ্য বিভাগের আওতায় পাবলিসিটি ডিপাটৃমেন্ট নামে কলকাতার রাইটার্স বিল্ডিংয়ে এ বিভাগের কার্যক্রম শুরু হয়।  ১৯৪৭ সালে তথ্য ও বেতার মন্ত্রণালয়ের অধীনে ফিল্ড পাবলিসিটি এবং নিউজ ও ফিল্ম শাখা নিয়ে পাবলিক রিলেশনস্ ডাইরেক্টরেট গঠিত হয়। ১৯৬৮ সালে এর কর্মপরিধি বাড়িয়ে প্রত্যেক জেলায় একজন ডিষ্ট্রিক্ট পাবলিক রিলেশনস অফিসার ও প্রত্যেক মহকুমায় একজন সাবডিভিশনাল পাবলিক রিলেশন্স্ অফিসারের পদ সৃষ্টি করা হয়। স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশের তৃণমূল পর্যায়ে জনগণকে সচেতন করার মাধ্যমে উন্নয়ন কার্যক্রমে উদ্বুদ্ধ ও সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ পরিষদ, বিএনআর এবং মহিলা শাখাকে একত্রিত করে ১৯৭২ সালে গণযোগাযোগ অধিদপ্তর গঠন করা হয়। ৬৪টি জেলা তথ্য অফিস ও ০৪টি পাবত্য 

ছবি

defaultpic.jpg defaultpic.jpg


সংযুক্তি



Share with :
Facebook Twitter